‘সরি’ বলে লাভ হলো না সারিকার

সারিকার অনিয়মিত চলাফেরার কারণে তিনি অনেকবারই সমালোচিত হয়েছেন। কিছু দিন আগেই তাকে নিষিদ্ধ করা হয় টেলিভিশন নাটক থেকে। শিডিউল ফাঁসানোর অভিযোগ তুলে টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস্ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ তাকে গত আগস্টে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। নিজের কৃত ভুলের জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কিন্তু পার পেলেন না সারিকা।

শুটিং ইউনিট তৈরি, নাটকের অন্যান্য অভিনয়শিল্পীও প্রায় ঠিক সময়ে পৌঁছে গেছেন শুটিংয়ে। কিন্তু এখনো অপেক্ষা অভিনেত্রী সারিকার। সারিকাকে কাস্ট করে এমন পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন অনেক পরিচালক। বিষয়গুলো বিভিন্ন সময় ব্যক্তিগতভাবে সমাধান হলেও এক সময় তা বড় আকারে রূপ নেয়।

শেষ ঘটনা, নেপালে একাধিক নাটকে শুটিংয়ের জন্য যাওয়ার কথা থাকলেও শেষ সময় আর এয়ারপোর্টে আসেননি সারিকা। এমনকি ফোনও বন্ধ পাওয়া যায় তার। এরপর পরিচালক এ বিষয়ে নাট্য সংগঠনগুলোতে অভিযোগ করলে বিষয়টির সত্যতা বিবেচনা করে সারিকাকে ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়।

পরবর্তীতে সারিকা এ বিষয়ে কোনো কথা না বললেও সম্প্রতি তিনি ফেসবুকে ঘটনাটির জন্য ক্ষমা চেয়ে পোস্ট করেন। সারিকা লেখেন, ‘সরি, পাঁচ অক্ষরের ছোট্ট একটি শব্দ। কিন্তু আজ সত্যি মনের গভীর থেকে মাফ চাইছি পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, সহকর্মী ও আমার শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছ থেকে। কখনো যদি জেনে না জেনে একটুও আঘাত করে থাকি অনুগ্রহ করে ক্ষমা করবেন।’

তবে তার ‘সরি’ বলে কোনো লাভ হলো না। সারিকার ‘সরি’ বিষয়টি নিয়ে অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম বলেন, ‘তার এই সরি মেনে নেওয়ার মতো না। একটি শুটিং ইউনিট তৈরি, কিন্তু তার কোনো খবর নেই। এছাড়া তার ফোনও বন্ধ। কাজের প্রতি দায়িত্ববোধ থাকতে হয়। এই জায়গাগুলো তাকে ঠিক করতে হবে।’

Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

আপনার মন্তব্য লিখুন