তনুশ্রীর বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি রুপির মানহানির মামলা

প্রথম দিকে যৌন হেনস্তার অভিযোগকে নানা পাটেকার হাস্যকর অভিযোগ বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন। যখন দেখলেন তনুশ্রী দত্তের ছোড়া তির একেরপর এক ঘায়েল করে আরো গভীরতর দিকে যাচ্ছে তখন উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান। কিন্তু তনুশ্রীর পক্ষ থেকে জানা যায় তিনি কোনো উকিল নোটিশ পান নি। এখন আবার ঘটনা নয়া মোড় নিয়েছে। বাদী আসামীর মাঝে ঢুকে পড়েছে তৃতীয় পক্ষ। মহারাষ্ট্র নবনির্মান পার্টি নানার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ মিথ্যা দাবী করে ৫০০ কোটি রুপির মানহানির মামলা দায়ের করেছেন এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে। জানিয়েছেন অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে ক্ষমাও চাইতে হবে তাকে।

অনেক আগেই তনুশ্রী জানিয়েছিলেন, ২০০৮ সালে এই ঘটনার পর অভিযোগ করতে চাইলেও মহারাষ্ট্র নবনির্মান পার্টির কর্মীদের কারনে তখন ভয়ে কোন অভিযোগ করেননি। নানা পাটেকর ঐ পার্টির রাজনীতি করেন বলেই ভয় পেয়েছিলেন তিনি। তবে এবার উঠেপড়ে লেগেছেন এই অভিনেত্রী। তার সাথে সুর মিলিয়েছেন বলিউডের অনেক অভিনেতা অভিনেত্রী। অনেকে পাশ কেটে রয়েছেন। যেহেতু আসামী নানা পাটেকার।

মহারাষ্ট্র নবনির্মান পার্টি নানার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ মিথ্যা দাবী করে ৫০০ কোটি রুপির মানহানির মামলার বিপক্ষে তনুশ্রীর পক্ষে দাড়িয়েছেন ভারতের ন্যাশনাল কমিউনিটি ফর উইমেন কর্তৃপক্ষ। তারাও তনুশ্রীর হয়ে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন নানাকে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি গানের শুটিং চলাকালীন নানা পাটেকর তাকে যৌন হেনস্তা করেছে বলে অভিযোগ করেছিলেন তনুশ্রী দত্ত। এমনকী ভারতের নবনির্মাণ সেনাকে দিয়ে তাকে মারধর করানো হয় বলেও অভিযোগ। এই অভিযোগ সামনে আসার পর থেকেই চলছে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি। তনুশ্রী যখন যৌন হেনস্তার অভিযোগে সরব, তখন নানা সেই দাবি নস্যাৎ করেছেন। অভিনেত্রীর কাছে আইনি নোটিসও পাঠিয়েছেন নানা পাটেকর। তবে এই কঠিন পরিস্থিতিতে বলিউডের অনেকেই যদিও তনুশ্রীর পাশে দাঁড়িয়েছেন।

 

 

Spread the love
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

আপনার মন্তব্য লিখুন