ফ্লপের যাঁতাকলে একজন বাদশাহ

আগামী কাল কিং খানের জন্মদিন। এই দিওয়ালিতে তাঁর কোনও ছবি রিলিজ নেই, এক সময়ের আশপাশের বন্ধুরা তাঁর কাছ থেকে বছর পাঁচেক আগে থেকেই সরে গেছেন। লাস্ট দু’বছর তাঁর ছবি শুধু চলেনি বললে কম বলা হবে, এত বাজে ভাবে ফ্লপ করেছে যে, তিনি ডিস্ট্রিবিউটারকে টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয়েছেন।

প্রায় ২৮ বছর আগে মুম্বই আসার পর এ রকম জৌলুসহীন, নিষ্প্রভ দোসরা নভেম্বর তাঁর এসেছে কি না তাই নিয়ে তার এক সময়ের বন্ধুদের মধ্যেই তর্ক তুঙ্গে।

কিন্তু তিনি তো শাহরুখ খান! এত সহজে কি তাহলে ওয়াকওভার দিয়ে দেবেন তাঁর স্টারডমকে? এত অনায়াসে কি তিনি হার মেনে নেবেন আজকের রণবীর-রণবীরদের সামনে?

Image result for শাহরুখ খান

নতুন ইকো সিস্টেম চাই কিং খানের। গত কয়েক বছর সেই রকম কোনও পার্টি না দিলেও যা জানা গেল, এ বারের জন্মদিনটা বিরাটভাবে সেলিব্রেট করছেন কেকেআর মালিক।

শাহরুখ খান একজন মাস্টার বিজনেসম্যান। সঙ্গে একজন টপ স্ট্র্যাটেজিস্ট। তার ক্যালকুলেশনের লেভেল আলাদা। লাস্ট তিন-চার বছর যে তাঁর ছবি চলেনি সেটা শাহরুখ নিজে সবার আগে স্বীকার করবেন। তাই জন্যই নিজের হারানো স্টারডম ফিরে পাওয়ার প্রথম ‘পিট স্টপ’ হিসেবে সে বেছে নিয়েছেন কালকের জন্মদিন। তিনি তৈরি করেছেন একটা অন্য স্ট্র্যাটেজিও।

 

কী সেটা?

যা জানা গেল, শেষ দু-এক বছরে রজনীকান্ত কি সালমান খানের কেরিয়ার কীভাবে চলে তা নিয়ে নাকি অনেক পড়াশোনা করেছেন শাহরুখ। এবং আগের ‘মার্কেট রিপোর্ট’ থেকে যা বেরিয়ে এসেছে তা হল, রজনীকান্ত ও সালমান- দু’জনেই একটা অদ্ভুত পৃথিবী বানিয়ে ফেলেছেন যে পৃথিবীতে কোনও ফ্লপ নেই। সেটা সম্ভব হয়েছে অসম্ভব লয়্যাল ফ্যানবেসের জন্য। যারা রজনীর ছবি ভোর চারটের শো-তেও হাউসফুল করে। সালমানের ফ্যানেরা তাঁর ফ্লপ ছবির ব্যবসাও ১৫০ কোটি করে দেয়।

“এর পরই আসে শাহরুখ-ম্যাজিক। ও কিন্তু এই সময়টা নষ্ট না করে রজনীকান্ত এবং সালমানের স্টারডমটা নিয়ে পড়াশোনা করছে। ও দেখেছে, এই দু’জন চেনা প্রোডিউসর এবং ডিরেক্টর ছাড়া ছবি করে না। পুরো দেশে এদের নিজস্ব ডিস্ট্রিবিউশন নেটওয়ার্ক আছে। বাকি কো অ্যাক্টররা এদের ছবি থাকলে সব ডেট সরিয়ে রেখে এদের দু’জনকে ডেট দিয়ে দেয়। শাহরুখ এতদিন ছবি করলেও তাঁর এরকম লয়্যাল ‘ইকো সিস্টেম’ কোনও কালেই ছিল না। আগের শাহরুখের সেটা দরকারও পড়ত না।

কিন্তু আজকের শাহরুখ বুঝেছে যে, এই ইকো সিস্টেম না থাকলে স্টারডমে টেকা যাবে না। তাই ২০২১-এর মধ্যে শাহরুখ এই পৃথিবীটা বানিয়ে ফেলতে চায়,” বলছিলেন তাঁর ঘনিষ্ঠ এক বন্ধু।

 

কিন্তু সেটা কী করে বানাবেন শাহরুখ খান?

“এর জন্য ওর পুরো টিম সব ডেটা নিয়ে বসেছিল। ওর ফ্লপ ছবিগুলো কোন কোন জায়গায় ভাল চলেছে সেগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই অঞ্চলে আগামী দু’বছর শাহরুখকে প্রায়ই দেখতে পাওয়া যাবে। এছাড়া, কিছু দেশ বিদেশের শহর আছে যেখানে শাহরুখকে নিয়ে পাগলামি সালমান কিংবা আমিরের থেকে বেশি। যেমন কলকাতা। এই শহরগুলোকে প্রায়োরিটি টেবলে আগে রাখা হচ্ছে। শাহরুখের ছবি রিলিজ হলে এই শহরে মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি একেবারেই আলাদা রকমের হতে হবে। এমন নির্দেশই দিয়ে রেখেছে শাহরুখ,” বলছিলেন শাহরুখের ঘনিষ্ঠ বন্ধু।

তিপান্নতম জন্মদিনের আগে, মান্নাতের ভিতরে সবচেয়ে বড় খবর মনে হয় এটাই। আর সত্যি তো, এরকম কোনও নতুন স্ট্র্যাটেজিই না নিলে শাহরুখ খানের স্টারডম-এর সিংহাসন কিন্তু টলমল।

“শাহরুখই একমাত্র স্টার যার ঝুলিতে ৩০০ কোটির বা তার বেশি বক্স অফিসে সাফল্য নেই। সালমান, আমিরের কিন্তু আছে। সেদিক থেকে দেখতে গেলে ওর শেষ ব্লকবাস্টার ছিল ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’। সেটাও পাঁচ বছর আগে। আর তার পর থেকে শাহরুখের কোনও ব্লকবাস্টার হিট নেই,” বলছেন ট্রেড বিশেষজ্ঞ তরন আদর্শ।

ঠিকই বলেছেন তরন। যে সময়টা শাহরুখের স্টারডমে কালো মেঘ জমেছে, ঠিক তখনই তাঁদের জীবনের সবচেয়ে বড় কিছু হিট দিতে সক্ষম হচ্ছেন সালমান (বজরঙ্গি ভাইজান) ও আমির (দঙ্গল)। এমনকী, মুখে কেউ কিছু না বললেও মুম্বইয়ের ট্রেড মহল এই মুহূর্তে অক্ষয় কুমারকেও শাহরুখ খানের আগে রাখছেন।

এমন অবস্থায় ৫৩তম জন্মদিনের আগে নায়কের আশেপাশে অনেকেই এই ফেজটাই শাহরুখের ‘লাস্ট ল্যাপ’ বলছেন।

“দেখুন, শাহরুখ জানে কীভাবে টাকা বানাতে হয়, শাহরুখ নিজের মার্কেটিং-টাও ভাল বোঝে। এই ক’বছরেও এমন বুদ্ধিদীপ্ত লগ্নি করে রেখেছে যে ছবি ফ্লপ করলেও ও কোনওভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। কিন্তু এটাও ঠিক, এত ইনভেস্টমেন্ট, বলিউডের ‘হাইয়েস্ট আর্নিং মুভিস্টার’-এর তকমা সত্ত্বেও সারসত্যটা হল, শেষ পাঁচ বছরে ওর কোনও হিট নেই,” বলছিলেন তাঁর ঘনিষ্ঠ এক সাংবাদিক।

কিন্তু যেহেতু তিনি শাহরুখ, তাই কেউই তাঁকে হিসেবের বাইরে ফেলে দিচ্ছেন না। সেই জন্যই ২১ ডিসেম্বর আনন্দ এল রাই পরিচালিত ‘জিরো’ এখন থেকেই ‘হট প্রপার’টি। অনেকেই বলছেন, এই ছবি মুক্তি পাওয়ার পরই আবার তাঁর হারানো স্টারডম ফিরে পাবেন কিং খান।

 

-সংবাদ প্রতিদিন

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আপনার মন্তব্য লিখুন