নেশা হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে স্যানিটারি ন্যাপকিন!

নেশার উপকরণ হিসেবে মাদক, ড্রাগ, গাঁজা, অ্যালকোহল ইত্যাদি ব্যবহার হয়ে আসছে অনেকদিন ধরেই। নিম্ন আয়ের অনেকে জুতা মেরামতে ব্যবহৃত ঝাঁঝালো ঘাম দিয়েও নেশা করেন। এবার এ তালিকায় যুক্ত হলো ‘স্যানিটারি ন্যাপকিন’ এর নাম।

সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ায় এমন দৃশ্যই চোখে পড়ছে। স্যানিটারি ন্যাপকিন দিয়ে নেশা করা এখন সেখানকার টিনেজারদের ট্রেন্ড বলা চলে। জানা গেছে, স্যানিটারি ন্যাপকিন এবং কটনপ্যাডের সেদ্ধ করা জুস খেয়ে নেশা করছে সে দেশের কিশোররা। এতে নাকি ভালো নেশা হয়, আর সে নেশাতেই মজেছে তারা।

Image result for নেশা হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে স্যানিটারি ন্যাপকিন!

প্রথমে স্যানিটারি ন্যাপকিনকে গরম পানিতে প্রায় এক ঘণ্টা ধরে ফুটিয়ে নেয়া হয়। তারপর ন্যাপকিনটিকে ফেলে দিয়ে ঠাণ্ডা করা হচ্ছে ফুটন্ত পানিকে। তিক্ত স্বাদের সেই পানি পান করছে ইন্দোনেশিয়ার একদল মানুষ।

তাদের দাবি, এই ন্যাপকিনের পানি পান করার পর তাদের আকাশে ভেসে থাকার অনুভূতি হচ্ছে! নেশার জন্য তারা ব্যবহৃত ও অব্যবহৃত দু’ধরনের ন্যাপকিনই ব্যবহার করছে।

প্রায় এক সপ্তাহ আগে থেকে এমন নেশায় আসক্ত হওয়ার দায়ে দেশটির পুলিশ ইতিমধ্যে কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে। দেশটির স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, দেশটির তরুণদের মধ্যে নতুন এ নেশার আসক্তি আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। স্যানিটারি ন্যাপকিন দেশটির বাজারে সহজলভ্য ও বৈধ হিসেবে বিক্রি হয় বলে সহজেই আসক্তদের নাগালে চলে যাচ্ছে বলে বলা হয়।

ইন্দোনেশিয়া ন্যাশানাল ড্রাগ এজেন্সির (বিএনএন) রির্পোট জানাচ্ছে, স্যানিটারি প্যাডের মধ্যে ক্লোরিন থাকে৷ যেটি মানবদেহে একপ্রকার হ্যালুসিয়েশন এবং তীব্র নেশার অনুভূতি জাগায়৷ এছাড়া মানবদেহের জন্য এটি অত্যন্ত ক্ষতিকারক বলে জানানো হয়।

Spread the love
  • 32
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    32
    Shares

আপনার মন্তব্য লিখুন