মৃত মায়ের সঙ্গে সেলফি তুলে ফেসবুকে ছেড়ে দিল ছেলে!

মৃত মায়ের সঙ্গে সেলফি তুলে নেটদুনিয়ায় ছেড়ে দিল ছেলে। সেই ছবি এখন ভাইরাল। এমন কাণ্ডে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরে। মৃত মায়ের সঙ্গে সেলফি তোলা ব্যক্তির নাম গনেশ দাস। গণেশ দাস সোনার গয়না তৈরির কারিগর। কাজের জন্য থাকেন অন্য অঞ্চলে। মায়ের মৃত্যু সংবাদ শুনে ছুটে আসেন গ্রামে। কিন্তু ততক্ষণে মায়ের লাশ শ্মশানে নিয়ে তার অন্য দুই ভাই ও বোন। লাশ দাহ করার জন্য তোলা হয় খাটিয়াতে। তড়িঘড়ি করে শ্মশানে পৌঁছেই খাটিয়াতে রাখা মায়ের লাশের সঙ্গে সেলফি তুলেন গনেশ।

এমন সেলফি সোশ্যাল মাধ্যমে পোস্ট করার পর মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। একের পর নেতিবাচক মন্তব্য করেন সবাই গণেশের পোস্টে।

অনেকে লিখেছেন, কেবল বিকৃত মানসিকতার লোকের পক্ষে এমন কাজ সম্ভব। কেউ লিখেছেন, মানুষ দিন দিন অসামাজিক হয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু, কী বলছেন গণেশবাবু? তিনি বলেন, আমি বাইরে থাকি। মা আমাকে খুব ভালবাসতেন। কিন্তু, মায়ের সঙ্গে আমার কোনও ছবিই নেই। তুলব তুলব করে ছবি তোলাই হয়নি। মা হঠাত্‍‍ চলে গেলেন। তাই মায়ের স্মৃতি ধরে রাখতে মৃতদেহের সঙ্গে সেলফি তুলে নিলাম। এটাই আমার স্মৃতি হয়ে থাকবে।

কিন্তু, সোশ্যাল মিডিয়ায় কেন পোস্ট করলেন ওই ছবি? গণেশবাবু বলেন, অন্য কোনও উদ্দেশ্য নেই, এটা মায়ের প্রতি আমার শ্রদ্ধা ছাড়া আর কিছুই নয়। কে কী মন্তব্য করল তা আমার কিছু যায় আসে না। গণেশবাবুর আরও যুক্তি, যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ যদি বাড়াবাড়ি করে, তাহলে তাঁকে আনফ্রেন্ড করে দেব। প্রয়োজনে ব্লকও করে দিতে পারি। এটা আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। এখানে কেউ হস্তক্ষেপ করুন, সেটা আমি কোনওদিন মেনে নেব না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সেলফি তুলতে তুলতে অনেকে যে মানসিক রোগী হয়েছে তার অন্যতম উদাহরণ এটি।

Spread the love
  • 9
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    9
    Shares

আপনার মন্তব্য লিখুন