‘গাছ-মাথা দানব’, চাঞ্চল্য বিজ্ঞানী মহলে, (ভিডিও সহ)

তার কথা ঘুরত মানুষের মুখে মুখে। মনে করা হতো, সে বুঝি কোনও কিংবদন্তির জীব। কিন্তু সম্প্রতি তার সন্ধান পাওয়া যাওয়ায় তাকে আর কল্পকাহিনির জীব বলে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার জলাভূমিতে সম্প্রতি খোঁজ মিলল এমন এক প্রাণীর, যার সম্পর্কে জীববিজ্ঞানীরা সে ভাবে অবহিতই ছিলেন না। ফ্লোরিডার এই জলাভূমি প্রাণীবৈচিত্রের কারণে প্রসিদ্ধ। এখানে বিবিধ প্রজাতির কুমির, সাপ ও অন্যান্য সরীসৃপের দেখা পাওয়া গেলেও এই জাতীয় প্রাণীর সন্ধান এই প্রথম।

ভিডিওতে দেখুন-

এই সরীসৃপটির দৈর্ঘ্য দু’ফুটের কাছাকাছি। স্যালামান্ডার প্রজাতির মধ্যে তাকে ‘দানব’ বলেই ধরা যেতে পারে। তার উপরে তার মাথার দু’পাশে গাছের মতো অংশ রয়েছে। সব মিলিয়ে তার চেহারা এতটাই অচেনা যে, তাকে এই পৃথিবীর প্রাণী বলেই মনে হয় না। তার মাতার ওই গাছের মতো অঙ্গটি প্রকৃতপক্ষে তার শ্বাস-অঙ্গ।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম ‘নিউ ইয়র্ক পোস্ট’-এর এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, এই প্রাণীটিকে ‘সাইরেন রেটিকুলাটা’ বলা হয়। এর সারা গায়ে চিতাবাঘের মতো দাগ রয়েছে। এর সামনে দু’টি পা থাকলেও পিছনের পা নেই। একে প্রথম দেখলে ইল জাতীয় মাছ বলে ভ্রম হয়।

যে গবেষক দল এই প্রাণীটির সন্ধান পেয়েছে, সেই দলের সদস্য ডেভিড স্টিন জানিয়েছএন, প্রাণীটি সত্যিই বিরল। অন্যান্য ‘সাইরেন রেটিকুলাটা’-র সঙ্গে এর পার্থক্য বিপুল।

তাঁদের গবেষণাপত্রে স্টিন ও তাঁর সহকর্মীরা জানিয়েছেন, ২০০৯ সাল থেকে তাঁরা এই প্রাণীর সন্ধান করে আসছেন। এই প্রাণীর আবিষ্কার এটাই প্রমাণ করে যে, এই গ্রহের জীববৈচিত্র সম্পর্কে বিজ্ঞানের আজও বহু কিছু জানা নেই।

সূত্রঃএবেলা

Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

আপনার মন্তব্য লিখুন